পূর্ণিমাকে ‘তাকদির’-এর গল্প শোনালেন চঞ্চল

বিশেষ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় শনিবার, ২০ নভেম্বর, ২০২১
  • ২৯ বার পড়া হয়েছে

কিছুদিন আগে ‘তাকদির’নামে একটি ওয়েব সিরিজে কাজ করেন ছোট ও বড় পর্দার আলোচিত তারকা চঞ্চল চৌধুরী। সেটি দেখার পর এই অভিনেতাকে প্রশংসায় ভাসিয়ে দেন এপার-ওপার দুই বাংলার দর্শকই। কীভাবে তিনি এই সিরিজের সঙ্গে যুক্ত হয়েছিলেন,

সম্প্রতি চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা সঞ্চালিত ‘বড় মঞ্চের তারকা’অনুষ্ঠানে অতিথি হয়ে এসে সেই গল্পই শুনিয়েছেন।চঞ্চল জানান, দুই লাইন গল্প শুনেই তার এত ভালো লেগে যায় যে ‘তাকদির’ করতে রাজি হয়ে যান। অভিনেতা বলেন,

‘কোভিডের সময় তো কাজ একদম বন্ধ ছিল। বাসায় বসে থাকতে ভালো লাগত না। মাঝেমধ্যে গোপনে নিকেতনে যেতাম। ভাই-বেরাদরের অফিসে আড্ডা মারতাম। একদিন সুমনের অফিসে গেলাম। সেখানে আড্ডা দিতে দিতে তানিম নূরের সঙ্গে পরিচয়।‘

তানিম নূরকে পরিচালক হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিয়ে চঞ্চল বলেন, ও বলল, আমাদের এক ছোট ভাই শাওকি ওটিটির জন্য একটা গল্প চিন্তা করেছে। দুই লাইনে তানিম আমাকে গল্পটা শোনাল।

একটা ফ্রিজার ভ্যানের ড্রাইভার সারা দেশে লাশ নিয়ে যায়। একদিন গ্রামে একটা লাশ রেখে আসার পরও দেখে গাড়িতে আরেকটা লাশ। গল্পটা শুনে বললাম, স্ক্রিপটা লেখো, আমি করব।’

পূর্ণিমার আড্ডায় চঞ্চল আরও বলেন, ‘তাকদির‘ করার আরেকটা কারণ ছিল। শেষ দুই বছর ওটিটির গল্প বলার ধরন নিয়ে আমার মধ্যে দ্বন্দ্ব কাজ করছিল। যে ধরনটা আমরাও ফলো করার চেষ্টা করছিলাম।

আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপটে যে ধরনের গল্প আসে, সেটা আমাদের সঙ্গে ওইভাবে যায় না। ওটিটির গল্পগুলো আগে কখনোই আমাদের দেশের মানের হতো না। ওগুলো পরিবারের সবাইকে নিয়ে একসঙ্গে দেখাও যায় না।‘

তিনি বলেন, `ওটিটিতে গল্প ছয়, সাত বা আট পর্বের হয়ে থাকে। এ জন্য প্রত্যেক পর্বের শেষে এমন কিছু দিতে হবে, যাতে পরের পর্ব দেখার জন্য আগ্রহ জাগে। আমাদের বাংলাদেশে তো এমন হাজার হাজার গল্প আছে। দরকার হলো বাছাই করা।

শুধু কপি করতে করতে আমরা এত দূর চলে এসেছি। আসলে কথাটা হবে, আমরা পেছনে চলে গেছি। আমাদের গল্পেও অনেক কিছু থাকতে পারে না? তৈরির ধরনটা আলাদা হবে। এই গল্প শোনার পর আমার মনে হয়েছে, গল্পটা আমাদের বাংলাদেশের। আমাদের মতোই।’

প্রসঙ্গত, দেশের সীমানা পেরিয়ে ভিনদেশে নিজেদের দ্যুতি ছড়িয়েছেন বা ছড়াচ্ছেন বাংলাদেশের যেসব তারকা, তাদের নিয়েই পূর্ণিমার অনুষ্ঠান ‘বড় মঞ্চের তারকা’। হাতিল নিবেদিত এ অনুষ্ঠান দেখা যাচ্ছে প্রথম আলোর অনলাইন, ফেসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেলে।

বন্ধুকে সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও যা পড়ে দেখতে পারেন
kidarkar
Copyright © 2021 All rights reserved www.mediamorol.com