মাত্র ৫০ টাকা বকশিশ না দেয়ায় অক্সিজেন খুলে দিলো ওয়ার্ড বয়,মা’রা গেলো রো’গী

বিশেষ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় বুধবার, ১০ নভেম্বর, ২০২১
  • ১০ বার পড়া হয়েছে

ওয়ার্ড বয়ের চাহিদামত বকশিশের ৫০ টাকা না পেয়ে অক্সিজেন খুলে দেয়ায় সড়ক দু’র্ঘট’নায় গুরু’তর আ’হ’ত’ চন্দ্র দাস (১৮) নামের এক রো’গী’র মৃ’ত্যু’র অভি’যোগ উঠেছে। ঘটনার শি’কা’র রো’গীর নাম বিকাশ

চন্দ্র দাস। তিনি গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার শিয়ালকুন্ডি গ্রামের বিশু দাসের ছেলে। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টায় বগুড়া শ’হীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাস’পাতালে’র সা’র্জারি

বিভাগে। ঘটনার পর থেকেই অভি’যুক্ত ওয়ার্ডবয় প’লা’ত’ক রয়েছে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ছিলিমপুর মেডিকেল ফাঁ’ড়ি’র ইনচার্জ এসআই শামিম হোসেন। নি’হ’তে’র চাচা শচীন চন্দ্র জানান, তার ভাতিজা বিকাশ চন্দ্র সন্ধ্যা ৭টায় সাঘাটায় মোটর সাইকেল দু’র্ঘট’না’য় আ’হ’ত হয়। এরপর স্থানীয় লোকজন তাকে সাঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লে’ক্সে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে তারা হা’স’পাতা’লে গেলে সেখান থেকে তার ক্ষ’ত স্থানগুলোতে ব্যা’ন্ডে’জ করে তাকে উন্নত ‘চিকিৎ’সার জন্য বগুড়া শ’হীদ জিয়াউর রহমান মে’ডিকেল হাস’পা’তালে নিয়ে যেতে বলে। এরপর শজিমেক হা’সপাতা’লের জরুরী বিভাগে নিয়ে যাওয়ার পর ওয়ার্ড বয় দুলু ট্র’লি নিয়ে যায়। ট্রলি’তে বিকাশকে নামানোর পর জরুরী বিভাগে নিয়ে ভর্তি করা হয়।

এরপর সেখানে তার মা’থা ড্রে’সিং করার পর অক্সিজেন মা’স্ক লাগিয়ে ট্র’লিতে করে সার্জা’রি বিভাগে ওয়ার্ড বয় দুলু নিয়ে যায়। ফ্লোরে বিকাশকে নামিয়ে দেয়ার পর ওয়ার্ড বয় দুলু ট্রলিতে করে উপরে নিয়ে আসার জন্য তাদের কাছে ২০০ টাকা বকশিশ চায়। কিন্তু ২০০ টাকার জায়গায় ১৫০ টাকা দেয়ায় ওয়ার্ড বয় অক্সিজেন মাস্ক খুলে দেয়ার কথা বলেন। কিন্তু তারা তাকে মাস্ক না খোলার অনুরোধ করেন। এরপরও ৫০ টাকা না পেয়ে সে রে’গে গিয়ে টান দিয়ে অক্সিজেন মা’স্ক খুলে দেয়। এর পরপরই বিকাশের শ্বা’সক’ষ্ট শুরু হয়।

তখন তারা ওয়ার্ড বয়কে অক্সিজেন লাগিয়ে দেয়ার অনু’রোধ করে কিন্তু ওয়ার্ড বয় ৫০ টাকা না দিলে লাগাবে না জানায়। এরপর তারা নিজেরাই বিকাশের মুখে অক্সিজেন লাগিয়ে দেয়ার চে’ষ্টা করে। যখন তার ভাতিজার নাক দিয়ে লা’লা বের হওয়া শুরু করে তখন ওয়ার্ড বয় পুনরায় অক্সি’জেন‍ লাগিয়ে দেয়। এরপর পর তার ভাতিজা আর শ্বা’স নিচ্ছে না দেখে ওয়ার্ড বয় সেখান থেকে পা”লিয়ে যায়। পরে ডা’ক্তা’র এসে রো’গী’কে মৃ’ত ঘোষণা করে। ছিলিমপুর মে’ডি’কেল ফাঁ”ড়ির ইনচার্জ এসআই শামিম হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ঘটনার পর থেকেই ওয়ার্ড বয় দুলু পা’লি’য়ে গেছে। লা’শ ম’র্গে রা’খা হয়েছে।

বন্ধুকে সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও যা পড়ে দেখতে পারেন
kidarkar
Copyright © 2021 All rights reserved www.mediamorol.com