সৌদিতে ভিক্ষাবৃত্তিতে নি’ষেধাঙ্গা,কঠোর সাজার ঘোষণা

বিশেষ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় বুধবার, ৩ নভেম্বর, ২০২১
  • ২৫ বার পড়া হয়েছে

সৌদিতে ভিক্ষাবৃত্তি বন্ধে কঠোর আইন পাস করেছে দেশটির সরকার। সৌদি মন্ত্রিসভা সম্প্রতি ভিক্ষাবৃত্তি বিরোধী এই আইনটি পাস করে। এই আইন অনুযায়ী, সৌদি আরবে এখন থেকে কেউ ভিক্ষা করলে এক বছর পর্যন্ত জেল ও এক লাখ সৌদি রিয়াল বা ২২ লাখ ৭২ হাজার টাকা জরিমানা হতে পারে। সৌদিভিত্তিক সংবাদমাধ্যম সৌদি গেজেটের একটি প্রতিবেদনে এমনটি বলা হয়েছে।

ভিক্ষাবৃত্তি বিরোধী নতুন এই আইনের পঞ্চম পরিচ্ছেদে ভিক্ষা করলেই এক বছরের কারাদণ্ডের সঙ্গে এক লাখ রিয়াল ২২ লাখ ৭২ হাজার টাকা জরিমানার কথা বলা হয়েছে। এ ছাড়া ভিক্ষাবৃত্তিতে সাহায্য বা উৎসাহিত করলে একজন ব্যক্তিকে ছয় মাস পর্যন্ত জেল অথবা সর্বোচ্চ ৫০ হাজার রিয়াল জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করা হতে পারে।

ভিক্ষাবৃত্তির অপরাধে কেউ একাধিকবার গ্রেপ্তার হলে তাঁকে এই সাজা দেওয়া হবে। এ আইন কার্যকরের ভার দেওয়া হয়েছে সৌদির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে। সৌদির নতুন এই আরও আইনে বলা হয়েছে, বিদেশি নাগরিকদের কেউ ভিক্ষা করলে তাকে সাজাভোগের পর স্বদেশে ফেরত পাঠানো হবে। একবার ফেরত গেলে তিনি জীবনে আর কখনোই কাজের জন্য সৌদিতে ঢুকতে পারবেন না।

তবে বিদেশি ভিক্ষুকদের কেউ যদি কোনো সৌদি নারীর স্বামী বা সন্তান হন, তাহলে স্বদেশে ফেরত যাওয়া থেকে বেঁচে যাবেন। আইনের চার অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে সংশ্লিষ্ট সংস্থার সঙ্গে সমন্বয় করে সৌদি ভিক্ষুকদের সামাজিক, স্বাস্থ্যগত, মনস্তাত্ত্বিক ও অর্থনৈতিক অবস্থা পর্যালোচনা করে সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় সহায়তা দিতে হবে। সৌদি আরবের মানবসম্পদ ও সামাজিক উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, ২০১৮ সালে দেশটিতে ২ হাজার ৭১০ জন ভিক্ষুককে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।

সৌদিগামী ফ্লাইটের যাত্রীদের সাত দিনের কোয়ারেন্টিনসহ কঠিন শর্তারোপ জুড়ে দেয়ায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ আগামী ২০ মে থেকে পরবর্তী চার দিনের সবগুলো শিডিউল ফ্লাইট বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আর সিদ্ধান্তটি সোমবার সৌদি আরবে বিমানের জেদ্দা, দাম্মাম ও রিয়াদ স্টেশনের কান্ট্রি ম্যানেজারকে ই-মেইলে জানিয়ে দেয়া হয়েছে।

গত রোববার সৌদি সিভিল এভিয়েশন অথরিটি থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষকে এক ই-মেইল বার্তায় জানানো হয়, ২০ মে রাত ১২টা (স্থানীয় সময়) থেকে সৌদিগামী বিমানের ফ্লাইটের প্রত্যেক যাত্রীকে অবশ্যই নিজ খরচে (থাকা ও খাওয়া) সাত দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। চিঠিতে আরো বলা হয়েছে, যাত্রীদের কোয়ারেন্টিনের থাকা খাওয়ার খরচ এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে কেটে নেয়া হবে। একই সাথে যাত্রী যাওয়ার পর দ্বিতীয় দিন এবং ষষ্ঠ দিন করোনা পরীক্ষা করা হবে।

সেই খরচও এয়ারলাইন্স থেকে কেটে অ্যাডজাস্ট করা হবে বলে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়। এমন কঠিন শর্তের চিঠি পেয়ে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ ফ্লাইট পরিচালনা নিয়ে কিছুটা দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়ে যায়। কর্তৃপক্ষের শঙ্কা, এমন কঠিন শর্তে কি যাত্রী পাওয়া যাবে? এরপরই বিমান ম্যানেজমেন্ট ২০ থেকে ২৪ মের চার দিনের (প্রতিদিন তিনটি করে) সবগুলো শিডিউল ফ্লাইট বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয়।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. আবু সালেহ মোস্তফা কামালের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি নয়া দিগন্তকে এ প্রসঙ্গে বলেন, ২০-২৪ মে বিষয়টি এখন পর্যন্ত ঠিকই আছে। ওরা এখন যে সমস্ত কঠিন শর্ত দিয়েছে সেগুলো আবার চার দিন আগে তাদেরকে কনফার্ম করতে হবে। তার মানে আজকে (মঙ্গলবার) কনফার্ম করার কথা। তাহলে তো আজকে পেয়ে আজকেই তো করা আমাদের সম্ভব হচ্ছে না।

যার ফলে ওই চার দিনের বিষয়ে আমাদের ফ্লাইট স্থগিত রাখতে হচ্ছে। তারপরে আমাদেরকে আবার পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। এদিকে করোনাভাইরাসের প্রার্দুভাবের কারণে বিমানের আবুধাবী, দুবাই, কুয়েত, মাস্কাট, নেপাল ও ভারতের কলকাতা-দিল্লি রুটে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ রয়েছে। পরিস্থিতি বিবেচনায় আগামী ২৪ মে থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স শুধু ঢাকা-দুবাই-ঢাকা রুটে সপ্তাহে দুটি করে ফ্লাইট (ফেরি) পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে বিমানের বলাকা ভবন সূত্রে জানা গেছে।

গতকাল বলাকা ভবনের একাধিক কর্মকর্তা নয়া দিগন্তকে বলেন, সৌদি সিভিল এভিয়েশন যে কঠিন শর্ত দিয়েছে তাতে ফ্লাইট চালানো মুশকিল হয়ে যাচ্ছে। আপাতত ২০-২৪ মে পর্যন্ত (মোট ১২টি ফ্লাইট) চার দিনের ফ্লাইট কেনসেল রাখা হচ্ছে। তবে কর্তৃপক্ষ ২৪ মে থেকে আবারো ঢাকা-দুবাই রুটে ফ্লাইট চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তারা জানান, সপ্তাহে দুইটি করে ফ্লাইট চালাবে। তবে যাওয়ার সময় ফ্লাইট খালি যাবে। আসার সময় যাত্রী নিয়ে ঢাকায় আসবে। এটাকে ফেরি ফ্লাইট বলে।

বন্ধুকে সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও যা পড়ে দেখতে পারেন
kidarkar
Copyright © 2021 All rights reserved www.mediamorol.com