শামির পাশে দাঁড়ানোয় কোহলির দশ মাসের কন্যাকে ধ”র্ষণে’র হু’মকি!

বিশেষ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ২ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩৬ বার পড়া হয়েছে

পাকিস্তানের বি’রু’দ্ধে হা’রের পর স’মালো’চিত হয়েছিলেন মহম্মদ শামি। নিউজিল্যান্ডের বি’রু’দ্ধে ম্যাচের আগে শামির পাশে দাঁড়িয়ে স’মালো’চ’কদের ক’ড়া বার্তা দিয়েছিলেন বিরাট কোহলী। এই ‘অপ’রাধে’ তাঁর দশ

মাসের মেয়েকে দেওয়া হল ধ”র্ষ’ণের হু’ম’কি। অনেকে ভেবেছিলেন সেই কাজ পাকিস্তানের কোনও ব্যক্তির করা। তবে সোমবার জানা গেল, অত্যন্ত নি’ন্দ’নীয় এই কাজের পিছনে রয়েছে এক দক্ষিণপন্থী ভারতীয়

টুইটার ব্যবহারকারী। গত শনিবার সাংবাদিক বৈঠকে শামির সমা’লোচক’দের দ্ব্য’র্থহী’ন ভাষায় আ’ক্র’মণ করেছিলেন কোহলী। বলেছিলেন, ধ’র্ম নিয়ে কাউকে এ রকম আ’ক্র’মণ করা মান’বিকতা’র সব থেকে নীচু স্তর। সাফ জানিয়েছিলেন, এ ধরনের জিনিস কোনও দিন ব’রদাস্ত করা হবে না। এর পরেই গত ৩০ অক্টোবর রাত ১১.৫৫ মিনিটে আমেনা নামে এক টুইট ব্যবহারকারী কোহলীর মেয়ে ভামিকাকে ধ”র্ষ’ণে’র হু’ম’কি দিয়ে একটি টুইট করে।

কোহলী সমর্থকরা সঙ্গে সঙ্গে একযোগে সেই টুইটের তী’ব্র বি’রো’ধি’তা করতে থাকেন। অনেকে বলতে থাকেন, এই টুইট পাকিস্তানের কোনও ব্যক্তির করা। কারণ সেই অ্যাকাউন্টে পাকিস্তানের জার্সি পরা এক মহিলা ক্রিকেটারের ছবি দেওয়া রয়েছে।কিন্তু সোমবার ‘বুম’ নামে একটি ওয়েবসাইটের তরফে দাবি করা হয়েছে, পাকিস্তানের কেউ নয়, শ’ত্রু রয়েছে ঘরেই! তেলু’গুভা’ষী দক্ষিণপ’ন্থী কোনও ব্যক্তির করা এই টুইট, যে আগে অন্য একটি নাম ব্যবহার করে টুইট করত।

কিছুক্ষণ পরেই অবশ্য টুইটটি মু’ছে দেওয়া হয়।ওই ব্যবহারকারীর বি’রু’দ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে কি না, তা নিয়ে টুইটারের তরফে কোনও উত্তর মেলেনি। তবে মনে করা হচ্ছে, ওই ব্যক্তি তেলঙ্গানা বা হায়দরাবাদের বাসি’ন্দা। ওই টুইটার প্রোফাইল থেকে তেলু’গু ভাষায় একাধিক টুইট রয়েছে। শুধু তাই নয়, দক্ষিণপন্থী একাধিক পোস্ট রিটুইট করা হয়েছে ওই অ্যাকা’উন্ট থেকে, যেখানে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও।

বন্ধুকে সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও যা পড়ে দেখতে পারেন
kidarkar
Copyright © 2021 All rights reserved www.mediamorol.com