kidarkar

করোনার মধ্যেই নতুন আতঙ্ক মিউকরমাইকোসিস, ৯ জনের মৃ’ত্যু!

বিশ্ব

হাসান রাফি | ১৯ ডিসেম্বর ২০২০, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ০৯:৪৩ পূর্বাহ্ন

ভারতে করো’নাভাই’রাসের প্রাদুর্ভাব চলাকালীন মি’উকরমাই’কোসিস নামে বিরল প্রজাতির এক ছত্রা’কের সং’ক্রম’ণ দেখা দিচ্ছে। সং’ক্রম’ণের ফলে আহমেদাবাদ সিভিল হাসপাতালে নয়জনের মৃ’ত্যু হয়েছে। হাসপাতালটিতে মিউ’করমাই’কোসিসে আক্রান্ত আরও ৪৪ জন ভর্তি রয়েছেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডের খবরে বলা হয়েছে, আহমেদাবাদ সিভিল হাসপাতালে ছাড়াও মিউ’করমা’ইকোসিসে আ’ক্রা’ন্ত হয়ে দিল্লির স্যার গঙ্গারাম হাসপাতালে ১২ জন ভর্তি রয়েছেন। দেশটির বাণিজ্যিক নগরী মুম্বাইয়েও এ রোগটি শনা’ক্ত হয়েছে।

ভারতের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, যাদের দেহে মি’উকরমাই’কোসি’সের সং’ক্রম’ণ দেখা যাচ্ছে তাদের বেশির’ভাগই ডায়া’বেটিস, কিড’নি কিংবা হা’র্টের অসুখ অথবা ক্যা’নসারের রো’গী। করো’নাভাই’রাস থেকে সেরে ওঠার পর তাদের শরীরে এ ছত্রা’কের সং’ক্রম’ণ দেখা যাচ্ছে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাওয়ার ফলেই এ সং’ক্রম’ণ ঘট’ছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

আহমেদাবাদ সিভিল হাসপাতালের ইএনটি সার্জন ডা. দেবাং গুপ্ত গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘আমরা এখন পর্যন্ত মিউ’করমাই’কোসিস ইন’ফেকশনে ২০ শতাংশ মৃ’ত্যু’র (৪৬ জনের মধ্যে নয় জনের) রেকর্ড করেছি। তবে সময়মতো চিকিৎসা করা হলে এ সং’ক্রা’ন্ত জটিলতা কমে যাবে।’আহমেদাবাদ সিভিল হাসপাতালের মেডিকেল সুপারিনটেনডেন্ট ডা. জে পি মোদি বলেন, ‘গত ১৮ বছরে আমি এ ধরনের প্রায় ২০টি সং’ক্রম’ণের ঘ’টনা দেখেছি।

কিন্তু, গত নয় মাসে আমরা এই জাতীয় রো’গী পেয়েছি ৪৬ জন। এসব রোগীদের অধিকাংশেরই করো’না থেকে সেরে ওঠার পরে দেহে রোগ প্র’তিরোধ ক্ষমতা কমে গেছে।’ তিনি জানিয়েছেন. মিউ’করমাই’কোসিসের চি’কিত্সায় প্রায় তিন লাখ থেকে চার লাখ রুপি প্রয়োজন হয়। তবে ভারতে বর্তমানে বিনা’মূল্যে এর চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  • *
  • এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আরও খবর

    kidarkar