অবশেষে বাইডেনকে পুতিনের অভিনন্দন

বিশেষ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় বুধবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ২ বার পড়া হয়েছে

অবশেষে নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে মস্কো এ তথ্য জানায়। ক্রেমলিন এক বিবৃতিতে জানায়, মার্কিন নির্বাচনে প্রতিটি অঙ্গরাজ্যে ডেমোক্র্যাটরা ইলেক্টোরাল ভোটে জয় পাওয়ার পর আনুষ্ঠানিকভাবে প্রেসিডেন্ট নিশ্চিত হওয়ায় জো-বাইডেনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

৩ নভেম্বর নির্বাচনের কয়েকদিন পর অনেক রাষ্ট্র জো বাইডেনকে নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট হিসাবে অভিনন্দন জানানো শুরু করে। তখন ক্রেমলিন জানায়, আনুষ্ঠানিক ফলাফল ঘোষণার আগে অভিনন্দন জানানোর বিষয়ে অপেক্ষা করতে চায় মস্কো। বিবৃতিতে পুতিন জানান, আমি আপনার (বাইডেন) সঙ্গে সম্পর্ক এবং যোগাযোগ স্থাপনে প্রস্তুত।

ক্রেমলিন আরও জানায়, নিজেদের মধ্যকার মতানৈক্য অতিক্রম করে বৈশ্বিক নিরাপত্তা, স্থিতিশীলতা রক্ষায় রাশিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রের উপর যে বিশেষ দায়িত্ব রয়েছে তা সফল এবং আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে পালনে নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট সচেষ্ট থাকবেন বলে আশাবাদী পুতিন। এছাড়া, বৈশ্বিক সংকট এবং চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় দু’দেশ একসঙ্গে কাজ করবে বলেও জানান তিনি।

বিশ্বশক্তিধর রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে সবশেষ রাষ্ট্র প্রধান ভ্লাদিমির পুতিন যিনি বাইডেনকে অভিনন্দন জানালেন। এর আগে রুশ নির্বাচন কমিশন প্রধান এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রীসহ মস্কোর কর্মকর্তারা মার্কিন নির্বাচন ব্যবস্থার তীব্র সমালোচনা করেন। বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচন প্রক্রিয়া সেকেলে এবং সাধারণ মানুষের প্রতিনিধিত্ব করে না।

বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের চেয়ে নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন রাশিয়ার বিরুদ্ধে কঠোর হবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। নির্বাচনী প্রচারণার সময় ডেমোক্র্যাটরা পুতিনসহ বিশ্বের স্বৈরাচারী শাসকদের সঙ্গে ট্রাম্পের সম্পর্ক তুলে ধরেন তুমুল সমালোচনা করেন।

২০১৬ সালের মার্কিন নির্বাচনে ট্রাম্পকে জয়ী করার জন্য রাশিয়া হস্তক্ষেপ করেছে বলে অভিযোগ রয়েছে। যাতে ক্ষমতায় এসে মস্কোর প্রতি নমনীয় থাকেন তিনি। নভেম্বরে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল, ২০১৬ সালের নির্বাচনে হিলারি ক্লিনটকে ইলেক্টোরাল কলেজ ভোটে হারানোর পরপরই কেন পুতিন অভিনন্দন জানিয়েছিলেন?

জবাবে তিনি বলেন, বর্তমান সময় এবং আগের অবস্থানের অনেক পার্থক্য রয়েছে। পেসকভ বলেন, আপনারা জানেন নির্বাচনে ভোট গণনা নিয়ে বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আইনি পদক্ষেপ নিয়েছেন। এ কারণে এবারের প্রসঙ্গ ভিন্ন। সঠিক সিদ্ধান্ত হলো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করা।

বন্ধুকে সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও যা পড়ে দেখতে পারেন
kidarkar
Copyright © 2021 All rights reserved www.mediamorol.com