kidarkar

ছাত্রলীগ নেতার কুপ্রস্তাবে অ’তিষ্ঠ প্রকৌশলীর স্ত্রী’

বাংলাদেশ

হাসান রাফি | ০৩ নভেম্বর ২০১৯, রবিবার | সর্বশেষ আপডেট: ০৮:৫১ অপরাহ্ন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এক ছাত্রলীগ নেতার বি’রুদ্ধে প্রকৌশলীর স্ত্রী’কে কু’প্রস্তাব দিয়ে নানাভাবে হ’য়রানির অ’ভিযোগ ওঠেছে। এর ফলে ওই প্রকৌশলীর সংসার ভাঙার উপক্রম হয়েছে।

অ’ভিযুক্ত ইমতিয়াজ আহম্ম’দ কাউছার জে’লার নবীনগর উপজে’লার বড়াইল ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী প্রকৌশলী মো. গোলাম হাক্কানী শুক্রবার (১ নভেম্বর) সদর মডেল থা’নায় একটি লিখিত অ’ভিযোগ দিয়েছেন।

তবে ওই ছাত্রলীগ নেতা জানিয়েছেন- প্রকৌশলীর স্ত্রী’ নিজ থেকেই তার সঙ্গে যোগাযোগ করতেন। বিষয়টি ‘মিটমাট’ হয়ে গেছে। প্রকৌশলী হাক্কানীর লিখিত অ’ভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গেল বছরের মে মাসে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর শহরের কাজীপাড়া এলাকার কবির আহম্ম’দের ছে’লে গোলাম হাক্কানীর সঙ্গে নবীনগর উপজে’লার বীরগাঁও ইউনিয়নের বীরগাঁও গ্রামের গোলাম সরকারের মে’য়ে নিশাত বেগমের বিয়ে হয়।

বিয়ের পর হাক্কানী জানতে পারেন তার স্ত্রী’ নিশাতের সঙ্গে বড়াইল ইউনিয়নের ফকিরবাড়ি এলাকার ছাত্রলীগ নেতা কাউছারের পূর্বপরিচয় রয়েছে।

নিশাত কোনো কাজে বাড়ির বাইরে বের হলে কাউছার তাকে উ’ত্ত্যক্ত করে কু’প্রস্তাব দিতেন। নিশাত সেই প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় কাউছার ফোনে তাকে হু’মকি দেন বলে অ’ভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে।

নিশাতের কাছ থেকে বিষয়টি জানার পর গত ৪ অক্টোবর কাউছারের সঙ্গে যোগাযোগ করেন হাক্কানী। এ সময় কাউছার তাকে হ’ত্যা করে নিশাতকে অ’পহ’রণ করবেন বলেও হু’মকি দেন।

হু’মকির পর নিশাতকে তার বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছেন হাক্কানী। কাউছারের কারণে হাক্কানী-নিশাতের সংসার এখন ভাঙার উপক্রম হয়েছে। এ ঘটনায় জে’লা ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দের কাছেও লিখিত অ’ভিযোগ করেছেন হাক্কানী।

ভুক্তভো’গী প্রকৌশলী গোলাম হাক্কানী জানান, সংসটারটা টিকিয়ে রাখার জন্য নিরুপায় হয়ে আমি থা’নায় অ’ভিযোগ করেছি। আমি নিরাপ’ত্তাহী’নতায় ভুগছি। আমি চাই আর কারও দাম্পত্য জীবনে যেন এমন না ঘটে।

তবে অ’ভিযোগ অস্বীকার করে ছাত্রলীগ নেতা ইমতিয়াজ আহম্ম’দ কাউছার জানান, বিয়ের আগে নিশাত আমা’র পরিচিত ছিল, বিয়ের পরে মাঝে-মাঝে আমাকে নক করত।

খুব একটা কথা হতো না। দুই মাস তিন মাস পর হয়তো একটু কথাবার্তা হতো। নিশাতের ফোন নাম্বারের কললিস্ট বের করে আমা’র নাম্বার পেয়েছে।

সেজন্য আমাকে স’ন্দেহ করছে। উনি (হাক্কানী) আমাকে ভুল বুঝছেন। ওনার সঙ্গে কথা হয়েছে, ভুল বোঝাবুঝি শেষও হয়েছে। উনি অ’ভিযোগ করবেন এমন কথা ছিল না।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জে’লা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন শোভন বলেন, অ’ভিযোগটি পেয়েছি। সভাপতির সঙ্গে কথা বলে অ’ভিযোগটি যাচাই-বাছাই করে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থা’না পু’লিশের পরিদর্শক (ত’দন্ত) আতিকুর রহমান জানান, অ’ভিযোগটির ত’দন্ত চলছে। ত’দন্ত শেষে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  • *
  • এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আরও খবর

    kidarkar