kidarkar

বন্ধুকে কলা বিক্রি করতে পাঠিয়ে ন্ধুর স্ত্রীকে পালাক্রমে গণধ’র্ষ’ণ

বাংলাদেশ

জাহিদ হাসান | ০৩ নভেম্বর ২০১৯, রবিবার | সর্বশেষ আপডেট: ০২:১৪ অপরাহ্ন

চুয়াডাঙ্গায় সদর উপজেলার যদুপুরে বন্ধুর স্ত্রীকে পালাক্রমে গণধর্ষনের অভিযোগ উঠেছে অপর দুই বন্ধুর বিরুদ্ধে। গত বুধবার সন্ধ্যায় যদুপুর গ্রামের পুরাতন মসজিদ পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। ধ’র্ষ’ণের শিকার ওই নারীকে শুক্রবার চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই নারীর স্বামী আব্দুল হালিম তার দুই বন্ধু একই এলাকার মিলন হোসেন (৩০) ও ওয়াসিম আলীকে (৩০) আ’সামি করে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় মা’মলা করেছেন। এ মা’মলায় অভিযুক্ত ওয়াসিমকে গ্রেফতার করেছে বেগমপুর ফাঁড়ির পুলিশ।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বেগমপুর ইউনিয়নের যদুপুর মসজিদপাড়ার আব্দুর সাত্তারের ছেলে মিলন হোসেন মিলো (৩৫) ও মৃ’ত জাফর ম-লের ছেলে ওয়াসিমের (৩০) সঙ্গে আব্দুল হালিমের বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে। এরই জের ধরে তারা একে অপরের বাড়িতে যাতায়াত করতেন। গত ৩০ অক্টোবর মিলন তার জমির পেপে ও কলা বিক্রি করার জন্য আব্দুল হালিমকে কৌশলে যশোরে পাঠান। এ সময় আব্দুল হালিমের স্ত্রী তার ছেলে-মেয়ে নিয়ে বাড়িতেই ছিলেন। গত বুধবার রাত নয়টার দিকে আব্দুল হালিমের স্ত্রী মুরগির ফার্ম দেখাশোনা করে ঘরে ফেরার সময় পূর্বে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা মিলন ও ওয়াসিম তার মুখ চেপে ধরে বাড়ির পাশে ইদ্রিস আলীর কলাবাগানে নিয়ে যান।

এ সময় তারা আব্দুল হালিমের স্ত্রীকে জোরপূর্বক পালাক্রমে ধ’র্ষ’ণ শেষে কলাবাগানে ফেলে রেখে যান। পরে তিনি বাড়িতে এসে তার আত্মীয়-স্বজনের কাছে ঘটনা খুলে বলেন। ধ’র্ষ’ণের ঘটনা জানতে পেরে আব্দুল হালিম বাড়ি ফিরে এসে ধ’র্ষ’ণের শিকার তার স্ত্রীকে গতকাল শুক্রবার বিকেলে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। এ ঘটনায় আব্দুল হালিম তার দুই বন্ধু একই এলাকার মিলন হোসেন মিলো ও ওয়াসিমকে আ’সামি করে সদর থানায় একটি মা’মলা করেন।

এদিকে, অভিযোগ পেয়ে সদর থানার নির্দেশে বেগমপুর ফাঁড়ি পুলিশের ইনচার্জ রাজীব আলী ও সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) আশরাফ যদুপুর বাজার থেকে ওয়াসিমকে আটক করেন। পরে আটক ওয়াসিমকে সদর থানা হেফাজতে সোপর্দ করা হয়।

এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ওসি (তদন্ত) এ এইচ এম লুৎফুল কবীর বলেন, খবর পেয়ে ধ’র্ষ’ণের শিকার ওই নারীকে হাসপাতালে দেখতে গিয়ে তার শারী’রিক অবস্থার খোঁজখবর নেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে ওই নারীর স্বামী আব্দুল হালিমের সঙ্গে কথা হয়েছে। এ ঘটনায় আব্দুল হালিম যদুপুর গ্রামের দুজনের নামে সদর থানায় অভিযোগ করেছেন। বিষয়টি তদন্ত চলছে। এরই মধ্যে এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অভিযুক্ত অপর আ’সামিকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। তিনি আরো জানান, ধ’র্ষ’ণের শিকার ওই নারীর ডাক্তারি পরীক্ষা প্রক্রিয়াধীন।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  • *
  • এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আরও খবর

    kidarkar