kidarkar

পাপনকে বাঁচালেন সাকিব!

বাংলাদেশ

রানা মিয়া | ০২ নভেম্বর ২০১৯, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:১৪ অপরাহ্ন

আইসিসি থেকে ২ বছরের নিষেধাজ্ঞা পেয়েছেন দেশের সেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। রায় ঘোষণার পর মঙ্গলবার (২৯ অক্টোবর) বিসিবিতে এসে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। সঙ্গে এসেছিলেন বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। সেদিন কেবলই নিজের লিখিত বক্তব্য পড়ে গিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। তবে তার প্রায় চারদিন পর শুক্রবার (০২ নভেম্বর) দিবাগত রাত ১টা ১১ মিনিটে নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে সাকিব যে পোস্টটি দিলেন তাতে ক্ষুব্ধ দর্শক-সমর্থকদের বেশ কিছু প্রশ্নের জবাব পাওয়া গেলো। সেদিনের সংবাদ সম্মেলন কিছুটা বড় করেছিলেন বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। নিজের জায়গা থেকে যথেষ্ট পেশাদারিত্বের পরিচয় দিয়েছিলেন। আশ্বাস দিয়েছিলেন সাকিবের পাশে থাকার। সঙ্গে বলেছিলেন, ‘সাকিব সাক্ষী, সাকিব যে শাস্তি পেতে যাচ্ছেন আমি আগে জানতাম না।’

দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের বেশিরভাগই পাপনের সেই কথা বিশ্বাস করেননি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে শুরু করে সব জায়গায় ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন পাপন। সাকিবভক্তরা দাবি করতে থাকেন, আইসিসির দেয়া এই শাস্তির পেছনে হাত আছে বিসিবির। এজন্য নিষেধাজ্ঞা ঘোষণার পর সমর্থকদের বিক্ষোভে পাপনবিরোধী স্লোগানও দেয়া হয়। নিজেদের পক্ষে যুক্তি হিসেবে তারা তুলে আনেন বেশ কিছুদিন আগে বোর্ড সভাপতির বক্তব্যকে। ক্রিকেটারদের আন্দোলনের মধ্যে সংবাদ সম্মেলনে পাপন খেলোয়াড়দের ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণের পাশাপাশি ফিক্সিংয়ের বিষয়েও আভাস দেন। ক্ষুব্ধ পাপন তখন বলেছিলেন, অল্প দিনের মধ্যেই ফিক্সিংয়ের রিপোর্ট আসছে। আপনারা চিন্তা কইরেন না। তার এই বক্তব্যের কিছুদিনের মধ্যেই আইসিসির পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে শাস্তি দেয়া হয় সাকিবকে। আর তাই সাকিবের বিষয়ে কিছু জানতেন না বলে বোর্ড সভাপতির বক্তব্য অবিশ্বাস করতে থাকেন সাকিবভক্তরা।

এরমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের ক্যাসিনোতে জুয়া খেলার একটি ভিডিও। বিষয়টি নিয়ে বিব্রত যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ও। সরাসরি কোনো মন্তব্য না করলেও যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল অস্বস্তি চাপা থাকেনি। তিনি বলেন, বাংলাদেশে ক্যাসিনি একটি অপরাধ। সেহেতু যারা এ অপরাধ করছে তাদের আমরা শাস্তি দিচ্ছি। এখন অনেকের কথাই শুনেছি বাইরে এসব করতে। তবে আমি এখন দেখিনি, শুনেছি। তাই এসব নিয়ে কিছু বলতে পারছি না। তবে সবাইকেই শাস্তি পাওয়া উচিত। বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল যখন দিল্লিতে প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারতের বিপক্ষে বহু প্রতীক্ষিত সিরিজে মাঠে নামার। ঠিক তখন কঠিন একটা সময় পার করছে বিসিবি; বিশেষ করে বিসিবি সভাপতি পাপন। এমন সময় নীরবতা ভেঙে ফেসবুকে নিজের অবস্থান জানালেন সাকিব আল হাসান। তার ওই পোস্টে উঠে এলো বেশি কিছু প্রশ্নের জবাব। সেক্ষেত্রে বলা যায়, পাপনকে কিছুটা বাঁচানোর চেষ্টা করেছেন সাকিব।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  • *
  • এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আরও খবর

    kidarkar