kidarkar

২৪ ঘন্টার ব্যবধানে সৌদি থেকে ফিরলেন আরো ৩৭৩ বাংলাদেশি

বাংলাদেশ

হাসান রাফি | ২৭ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার | সর্বশেষ আপডেট: ০৪:২১ অপরাহ্ন

আরও ১৭৩ জন বাংলাদেশি কর্মীকে দেশে ফেরত পাঠিয়েছেন সৌদি আরব সরকার। সৌদি সরকারের ধরপাকড়ের অ’ভিযানে শনিবার স্থানীয় সময় রাত ১১টা ৩০ মিনিটে সৌদি এয়ারলাইন্সের এসভি ৮০৪ বিমান যোগে তাদের ফেরত পাঠানো হয়।

এ নিয়ে গত শুক্রবার (২৫ অক্টোবর) রাত সাড়ে ১১টা থেকে থেকে শনিবার রাত সোয়া ১১টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরেছেন ৩৭৩ জন কর্মী। বৈধ কাগজপত্র এবং আকামা’র মেয়াদ থাকা সত্ত্বেও সৌদি থেকে প্রতিদিনই এভাবে ফিরতে হচ্ছে প্রবাসী বাংলাদেশিদের।

বরাবরের মতো দেশে ফেরা কর্মীদের ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের মাধ্যমে বিমানবন্দরে জরুরি খাবার-পানিসহ নিরাপদে বাড়ি পৌঁছানোর জন্য সহায়তা প্রদান করা হয়। এর আগে গত শুক্রবার একই অ’ভিযানের মাধ্যমে সৌদি থেকে দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছিল অন্তত আরও ২০০ বাংলাদেশিকে।

ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড সূত্র জানায়, চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত সৌদি আরব থেকে ফিরে এসেছেন প্রায় ১৮ হাজার কর্মী। এর আগে ২০১৭ সালে ফিরেছেন ১৬ হাজার ও ২০১৮ সালে ফিরেছেন ২৪ হাজার কর্মী। আর গত ১০ বছরে দেশটি থেকে শূন্য হাতে ফিরে এসেছেন ২ লাখের বেশি বাংলাদেশি কর্মী।

সৌদি আরবের বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্র জানায়, অ’বৈধ শ্রমিকদের নিজ দেশে ফেরত পাঠাতে ২০১৭ সালের জুলাই থেকে নিয়মিত অ’ভিযান চালাচ্ছে সৌদি পু’লিশ। গত আড়াই বছরে বিভিন্ন দেশের প্রায় ১০ লাখ কর্মীকে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

দূতাবাসের এক কর্মক’র্তা জানান, কাজ নিয়ে সৌদি আসা কর্মীদের মালিক (কফিল) বা কাজ পরিবর্তনের সুযোগ নেই। যে কাজ নিয়ে তাঁরা আসেন, তার বাইরে কিছু করার আইনগত অধিকার নেই তাঁদের। তাই বৈধভাবে আসার পরও অনেকে কাজ পরিবর্তন করার কারণে অ’বৈধ হয়ে পড়েন।

অ’ভিবাসন খাত নিয়ে কাজ করা বেসরকারি গবেষণা সংস্থা রাম’রুর পরিচালক সি আর আবরার বলেন, যে কাজের কথা বলে নেওয়া হয়, তা দেওয়া হয় না। তাই বাধ্য হয়েই অন্য কোনো কাজের দিকে যান কর্মীরা। বৈধভাবে গিয়ে অ’বৈধ হয়ে পড়ার বিষয়টি ভালো করে খতিয়ে দেখা উচিত সরকারের।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  • *
  • এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আরও খবর

    kidarkar