kidarkar

‘আব্বু-আম্মু মিলে মিশে থেকো’ চি’রকুট লিখে স্কুলছাত্রের আ’ত্মহ’ত্যা

বাংলাদেশ

হাসান রাফি | ২৪ অক্টোবর ২০১৯, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ০৩:৩১ অপরাহ্ন

আমা’র মৃ’ত্যুর জন্য দায়ি কেউ নন। আমি চায় আব্বু ও আম্মু মিলে মিশে থাকুক। কখনো ঝগড়া না করুক, ভাই বোনদের যেন মা’রে। তাদের যেন আদর স্নেহ করুক। চিরকুটে এমন লেখা লেখে ব্রাক্ষণবাড়িয়ার আখাউড়ায় অ’পু মিয়া (১৫) মিয়া নামে এক কিশোর গলায় ফাঁ’স লাগিয়ে আত্মহ’ত্যা করেছে। বুধবার বিকেলে আখাউড়া উপজে’লা মোগড়া ইউনিয়ন ছয়ঘড়িয়া গ্রামের এই ঘটনা ঘটে। নি’হত অ’পু মিয়া মোগড়া ইউনিয়নে ছয়ঘড়িয়া গ্রামের আনোয়ার মিয়ার ছেলে।

পু’লিশ জানায় দুপুরে তার বসতঘরে দীর্ঘক্ষণ দরজা জানালা বন্ধ থাকায় প্রতিবেশীদের সন্দেহ হলে দরজা ধাক্কাধাক্কি করেও কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে আখাউড়া থানায় খবর দেওয়া হলে পু’লিশ এসে অ’পুর ঝুলন্ত লা’শ উ’দ্ধার করে।

প্রতিবেশীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, বুধবার সকালে নি’হত অ’পুর মায়ের সাথে প্রবাসে থাকা তার পিতা আনোয়ার মিয়া সাথে বাকবিতন্ডা হয়। এর জের ধরে অ’পুর মা তাকে মা’রধর করে। পরে সকালে তার মা তাকে ঘরে একা ফেলে পিত্রালয়ে চলে যায়। তবে এটি হ’ত্যা না আত্মহ’ত্যা এই বিষয়ে বিস্তারিত কিছুই জানা যায়নি।

অ’পুর মা নিলুফা বেগম জানান, আমি আমা’র ছেলের জন্য নিজে দুপুরের খাবার রান্না করে ঘরে রেখে, আমা’র বাপের বাড়ি যাই। কিন্ত পরে শুনি, আমা’র ছেলে গলায় ফাঁ’স লাগিয়ে আত্মহ’ত্যা করেছে। কেন করেছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি কোন কারণ খোঁজে পাচ্ছি না যে, এই কারণে আমা’র ছেলে গলায় ফাঁ’স লাগিয়ে আত্মহ’ত্যা করতে পারে। আমা’র কাছে ছেলের এই মৃ’ত্যুটি র’হস্যজনক মনে হচ্ছে।

এই ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া অ’তিরিক্ত পু’লিশ সুপার মুহাম্ম’দ আলমগীর হোসেন জানান সংবাদটি পেয়ে আখাউড়া থানা লা’শ উ’দ্ধার করে। ময়না ত’দন্তে জন্য লা’শ ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাস*পাতালে পাঠানা হয়েছে।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  • *
  • এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আরও খবর

    kidarkar