ফুটপাতের উপড়ে চলন্ত বাস, নি’হত একই পরিবারের ৭ জন

একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফুটপাতে ঘুমিয়ে থাকা লোকজনের ওপর উঠিয়ে দেয়। এই ঘটনায় শি’শুসহ সাতজন নি’হত হয়েছে বলে খবরে প্রকাশ। নি’হতরা সবাই একই পরিবারের বলে জানা যায়। ভারতের উত্তর প্রদেশের উত্তরাঞ্চলীয় বুলান্দশারে শুক্রবার (১১ অক্টোবর) সকালে এই দুর্ঘ’টনা ঘটে। নি’হতদেরমধ্যে চারজন নারী এবং তিন শি’শু।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, নি’হতরা উত্তরপ্রদেশের হাথরাসের বাসিন্দা। তারা গঙ্গায় পুণ্যস্নান করতে এসেছিলেন। গঙ্গাস্নানের পর তারা নারাউড়া ঘাট থেকে নিজেদের গ্রামের উদ্দেশে রওনা দেন। কিন্তু পথে রাত হয়ে গেলে ওই ফুটপাতে ঘুমিয়ে পড়েন তারা। সকালে একটি বাস বেপরোয়া গতিতে আসতে গিয়েই বিপত্তি ঘটে। চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে বাসটি ফুটপাথের উপর চলে আসে। পিষে দেয় ঘুমিয়ে থাকা ৭ তীর্থযাত্রীকে।

ওই দুর্ঘ’টনার পরে বাসের চালক নি’খোঁজ রয়েছে বলে পু’লিশ জানিয়েছে। নি’হতদের ময়না ত’দন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।
ভারতে একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফুটপাথে ঘুমিয়ে থাকা লোকজনের ওপর উঠিয়ে দেয়ার ঘটনায় সাতজন নি’হত হয়েছে। এদের মধ্যে চারজন নারী এবং তিন শি’শু। এরা সবাই একই পরিবারের সদস্য। উত্তর প্রদেশের উত্তরাঞ্চলীয় বুলান্দশার জে’লায় শুক্রবার সকালে এই দুর্ঘ’টনা ঘটেছে।

তীর্থযাত্রায় এসেছিল ওই পরিবারটি। তারা বৃহস্পতিবার রাতে ফুটপাথের ওপরই ঘুমিয়ে ছিল। শুক্রবার সকালে একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ঘুমিয়ে লোকজনের ওপর উঠে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই সাতজনের মৃ’ত্যু হয়েছে।

বুলান্দশারের নারাউরা এলাকায় গঙ্গাঘাটের কাছেই ওই দুর্ঘ’টনা ঘটেছে। প্রাথমিক খবরে জানা গেছে, নি’হতরা উত্তর প্রদেশের হাথরাস এলাকার বাসিন্দা। তারা গঙ্গায় স্নান সেরে নারাউরা ঘাটে এসেছিলেন।

দুর্ঘ’টনার পর থেকেই পলাতক রয়েছেন ওই বাসের চালক। এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রে’ফতার করা হয়নি। দুর্ঘ’টনা ত’দন্ত করছে পু’লিশ। ম’রদেহগুলো ময়নাত’দন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।