নিউজ কাভার বন্ধ রাখলে ২ ঘণ্টায় সব সমাধান : ভিসি নাসির

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) আন্দোলনের নামে শিক্ষার্থীরা অশালীন কাজে জড়িয়ে পড়ছেন বলে মন্তব্য করেছেন উপাচার্য প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিন। এছাড়া আন্দোলনের জন্য সাংবাদিকদের দায়ী করেছেন তিনি।

মঙ্গলবার বেসরকারি টেলিভিশন যমুনা টিভিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন উপাচার্য।

আন্দোলনের জন্য সাংবাদিকদের দায়ী করে তিনি বলেন, ‘সাংবাদিকরা বলে দিচ্ছেন- এভাবে দাঁড়াও, ওভাবে নাচ। সংবাদ কাভার বন্ধ রাখেন, দুই ঘণ্টায় সমাধান হয়ে যাবে।’

ড. নাসির উদ্দিন বলেন, ‘আন্দোলনরত ছাত্র-ছাত্রীদের বের করতে দেবেন না, অথচ দেখেন তারা রাস্তায় রাস্তায়, ঝোপে-ঝাড়ে অশালীন কাজ করে বেড়াচ্ছে; সারারাত থাকছে। তাদের ইনভাইটেড গেস্ট , অছাত্ররাও এসে রাত কাটাচ্ছে। হোয়াট ইস দিস?’

তিনি আরও বলেন, ‘ভিসি অপসারণের জন্য আপনারা দাবি করতে পারেন, মানববন্ধন করতে পারেন। কিন্তু আড়াই কোটি টাকার ভুল তথ্য পেপারে দিয়ে ভিসি তাড়াতে হবে এটা তো ঠিক না।’

‘আমি একজন ভাইস চ্যান্সেলর চলে গেলে সমস্যা নেই, চলে যাব। কিন্তু এমন করলে তো ৪২ ভাইস চ্যান্সেলরের একজনকেও রাখা যাবে না। তিন মাস পর পর নতুন ভিসি নিয়োগ দিতে হবে’ যোগ করেন তিনি।

সাংবাদিকদের উদ্দেশে উপাচার্য বলেন, ‘আমি সাংবাদিকদের ভাইদের বললাম, আপনারা আমার সাথে বসেন। সমাধান ৫ মিনিটে। আপনারা এটা নিয়ে বাড়াবাড়ি করবেন না। কিন্তু আপনারা আমাদের কথাগুলো লিখছেন না।’

‘আপনারা তাদেরকে ডিরেকশন দিচ্ছেন, তাদের বক্তব্য লিখে দিচ্ছেন। বলে দিচ্ছেন- এভাবে দাঁড়াও, এভাবে নাচ। এটা তো ঠিক না। হোয়াট ইস দিস?’ প্রশ্ন করেন তিনি।

একপর্যায়ে হতাশার সুরে নাসির উদ্দিন বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে আমাদের কন্ট্রোল নেই; সব ছেলেমেয়েরা নিয়ে নিয়েছে। আমাদের দুজন অফিস যাচ্ছিল, তাদেরকেও ‘রাজাকার রাজাকার’ বলে গালিগালাজ করেছে; অথচ তারা বঙ্গবন্ধু কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ছিল। আরেক অফিসার ফাইল আনতে গেলে তার সঙ্গেও দুর্ব্যবহার করা হয়েছে।’

প্রসঙ্গত, দুর্নীতি, অনিয়ম, নারী কেলেঙ্কারি ও বাক-স্বাধীনতা হরণের অভিযোগে উপাচার্যের পদত্যাগসহ ১৪ দফা দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

পদত্যাগ দাবির যৌক্তিকতা তুলে ধরতে আজ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে একাডেমিক ভবনের সামনে প্রেস ব্রিফিং করেন তারা।

এদিকে উপাচার্যে পদত্যাগ চেয়ে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী ও বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকের উপরে হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (বশেমুরবিপ্রবিসাস)।

মঙ্গলবার দুপুর ১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জয়বাংলা চত্বরে বশেমুরবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতির উদ্যোগে এ মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশের আয়েজন করা হয়। এ সময় গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টিতেও সাংবাদিকদের সাথে শিক্ষার্থীদেরও স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ লক্ষ্য করা যায়।

মানববন্ধনে বশেমুরবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি শামস জেবিন শিক্ষার্থীদের উপর হামলার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন এবং শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে যৌক্তিক দাবি করে তিনি আবারো শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের প্রতি একাত্মতা পোষণ সহ প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।