শ’ টাকার আম খাওয়ায় লক্ষাধিক টাকা জরিমানা দুই আমিরাত প্রবাসী!

বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন বিভাগের এক শ্রমিক বিমানে লাগেজ উঠানোর সময় ফলের ঝুড়ি থেকে চুরি করে দুটি আম খেয়ে নিয়েছিলো। এই অপরাধে তাকে ১ লাখ টাকার বেশি অর্থ জরিমানা করা হয়েছে। একই সঙ্গে তিন মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে তাকে।

না, ভাই এটা বাংলাদেশের ঘটনা নয়। মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতের ঘটনা। আম চুরি করে আম খাওয়ার অপরাধে সোমবার এই সাজা ঘোষণা করেছে দুবাইয়ের এক আদালত।

২০১৭ সালের আগস্ট মাসের ঘটনা। তখন দুবাই বিমানবন্দরের তিন নং টার্মিনালে যাত্রীদের মালপত্র উঠানোর কাজ করছিলেন ২৭ বছর বয়সী এক ভারতীয় শ্রমিক। তিনি ভারতে যাওয়া বিমানের যাত্রীদের লাগেজ তুলছিলেন। এ সময় এক যাত্রীর ফলের ঝুড়িতে আম দেখে লোভ সামলাতে পারেননি ওই শ্রমিক। ঝুড়ি খুলে তিনি দুটি আম চুরি করে খেয়ে নেন। দুবাই বাজারে যার মুল্য ছিলো মাত্র ৬ দিরহাম। বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৩৭ টাকা।

ওই কর্মচারী ভেবেছিলেন আশেপাশে যখন কেউ নেই তখন তার এ চুরি আর কে দেখবে! কিন্তু তার ভাগ্যটা খারাপই বলতে হয়।সিসিটিভি ক্যামেরায় ঘটনাটি দেখে ফেলেন এক নিরাপত্তা কর্মী। সঙ্গে সঙ্গে তিনি এ ঘটনাটি তিনি উর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে জানিয়ে দেন। এরপর তাকে আটক করা হয়। এমনকি তার বাড়িতেও সার্চ করা হয়। তবে বাড়ি থেকে আর কোনো চুরির মাল উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

ধরা পড়ার পর প্রথমে ঘটনাটি চেপে যাওয়ার চেষ্টা করেন ওই শ্রমিক। পরে দুবাই পুলিশের কাছে নিজের দোষ স্বীকার করেন। পুলিশকে জানান, খুব পানির তেষ্টা পাওয়ায় তিনি ফলের ঝুড়ি খুলে আম দুটি খেয়ে ফেলেন। তবে তিনি যাত্রীদের লাগেজ থেকে আর কিছু চুরি করেননি।

এই ঘটনায় সোমবার তার বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা করেছে দুবাইয়ের এক আদালত। মাত্র ৬ দিরহাম মূল্যের আম খাওয়ার জন্য তাকে ৫ হাজার দিরহাম (বাংলাদেশি মুদ্রায় ১ লাখ ১৪ হাজার ৭৪৮ টাকা) জরিমানা করা হয়েছে। একই সঙ্গে ৩ মাসের জেল। সাজার মেয়াদ শেষ হওয়ার পর তাকে ভারতে ফেরত পাঠানো হবে বলেও জানা গেছে।

তবে ২০১৭ সালের ঘটনায় এতদিন পর কেন রায় হলো সে বিষয়ে কিছু জানা যায়নি।

সূত্র: গালফ নিউজ