রাব্বানীর বিরুদ্ধে আদালতে যাবেন নূর

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে সরিয়ে দেয়ার পর গোলাম রাব্বানীকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রসংসদের (ডাকসু) সাধারণ সম্পাদকের (জিএস) পদ থেকে পদত্যাগের দাবি উঠেছে।

ডাকসুর সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নূর রাব্বানীর সঙ্গে দায়িত্ব পালন করবেন না বলেও জানিয়েছেন। তবে রাব্বানী যদি পদত্যাগ না করেন তাহলে তার বিরুদ্ধে আদালত পর্যন্ত যাবেন বলে জানিয়েছেন ভিপি নূর।

তিনি বলেন, ‘গোলাম রব্বানীর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে, নৈতিক স্খলনের জন্য তাকে সংগঠন থেকে পদচ্যুত করা হয়েছে। ছাত্রলীগ যেখানে এ ধরনের অপরাধকে প্রশ্রয় দেয়নি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে প্রশ্রয় দেয়ার প্রশ্নই উঠে না। এটা নৈতিকভাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সমর্থন করতে পারে না। আর যদি করেও থাকে এটি খারাপ দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। সে জায়গা থেকে আমরা তার পদত্যাগ চেয়েছি। ঢাকসুর অন্যদের সঙ্গে কথা বলে (রব্বানীকে সরাতে) আনুষ্ঠানিকভাবে চিঠি দেব, উপাচার্যকে মৌখিকভাবে জানিয়েছি।’
নূর বলেন, ‘পরিবেশ পরিস্থিতি…আশা করি, আমি শুনেছি যে তিনি পদত্যাগ করবেন। আর যদি পদত্যাগ না করেন তবে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রয়োজনে আদালত পর্যন্ত যাব। তবে আমার মনে হয় সেটা করতে হবে না। কারণ ডাকসুর এক্সিকিউিটভ মিটিং করে সিদ্ধান্ত নেয়া যেতে পারে৷ উপাচার্যের একক ক্ষমতা দেয়া আছে, তিনি চাইলে এমন অভিযোগে বা যে কেউ দায়িত্ব পালনে অক্ষম হলে ব্যবস্থা নিতে পারবেন৷ উপাচার্য নৈতিক জায়গা থেকে পিছুপা হবেন না বলে আমি মনে করি।’

নূর বলেন, ‘নৈতিকভাবে তার সঙ্গে কাজ করা আমার সম্ভব নয়, সেজন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে জানিয়েছি, ডাকসুর অন্যদের জানিয়েছি, এখন আমাদের একটা ব্যবস্থা তো নিতেই হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের জিএস হবে একজন চাঁদাবাজ, দুর্নীতিগ্রস্ত, বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন ফান্ড থেকেও তিনি চাঁদাবাজি করবেন, তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের প্রতিনিধিত্ব করবেন এটা কখনোই মেনে নেয়া যায় না।’

সূত্র: ডয়চে ভেলে