মাহমুদুল্লাহ্রর ব্যাটিংয়ে জিম্বাবুয়েকে চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য বাংলাদেশের

চলতি ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে আজ মাঠে নামে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে। বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬:৩০ মিনিটে শুরু হওয়া এই ম্যাচে টস জিতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজা।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা দুর্দান্ত করে বাংলাদেশ দলের দুই ওপেনার লিটন দাস ও নাজমুল হোসেন শান্ত। তাদের ব্যাটে দারুণ শুরু করে বাংলাদেশ। কিন্তু সেই জুটিতে আঘাত হানেন জার্ভিস। অভিষেকে ১১ রান করে জার্ভিসের বলে তার হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন শান্ত।

শান্তর বিদায়ের পর সাঝঘরে ফিরেন লিটন। এমপোফুর বলে মাদজিভার হাতে ক্যাচ দিয়ে ২২ বলে ৪ চার ও ২ ছয়ে ৩৮ রান করে ফিরেন তিনি। এরপর ১০ রান করে বার্লের বলে উইলিয়ামসের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন সাকিব।

সাকিবের বিদায়ের পর ব্যাট হাতে দলের হাল ধরেন মাহমুদউল্লাহ ও মুশফিক। তাদের সেই জুটিটি ভাঙ্গেন মুতুম্বোজি। ৩২ রান করে টেলরের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন মুশফিক। অন্যদিকে হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন মাহমুদউল্লাহ। ৩৭ বলে ১ চার ও ৪ ছয়ে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন তিনি।

এমপোফুর বলে টেলরের হাতে ধরা পড়ে ৭ রান করে ফিরেন আফিফ। ৪১ বলে ১ চার ও ৫ ছয়ে ৬২ রান করে জার্ভিসের বলে উইলিয়ামসের হাতে তালুবন্ধি হয়ে ফিরেন মাহমুদউল্লাহ। এরপরের বলেই চাকাভার হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন মোসাদ্দেক। ২ রান করে ফিরেন তিনি। শেষ পর্যন্ত ২ বলে ৬ রানে অপরাজিত ছিলেন সাইফউদ্দিন।

এরই ফলে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৭৫ রান করে বাংলাদেশ। জয়ের জন্য জিম্বাবুয়ের দরকার ১৭৬ রান।