প্রধানমন্ত্রীর পদ হারাচ্ছেন নেতানিয়াহু!

ইসরায়েলে মাত্র পাঁচ মাসের ব্যবধানে দ্বিতীয় দফা সাধারণ নির্বাচন অনুষ্টিত হয়েছে গত মঙ্গলবার। এখনও আনুষ্ঠানিক ফলাফল প্রকাশিত হয়নি। তবে বুথ ফেরত জরিপে দেখা যাচ্ছে নির্বাচনে বিজয়ী হতে পারছেন না ডানপন্থী প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহু। তাকে হারিয়ে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী হতে চলেছেন মধ্যপন্থী নীল এবং সাদা জোটের বেনি গান্টজ।

বুধবার বুথফেরত জরিপে দেখা গেছে, নেতানিয়াহু ও তার ডানপন্থী জোট সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় ৬১টি আসন নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হয়েছে। জরিপে বেনি গান্টজের খুব সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে থাকার আভাস মিলেছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি বলছে, বুথ ফেরত জরিপে দেশটির ক্ষমতাসীন প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহুর নেতৃত্বাধীন ডানপন্থী লিকুদ পার্টি ৩০ থেকে ৩৩ আসনে জয় পেতে পারে। অন্যদিকে তার প্রতিদ্বন্ধী দেশটির সাবেক সেনাপ্রধান ও মধ্যপন্থী নীল এবং সাদা জোটের বেনি গান্টজ ৩২ থেকে ৩৪ আসনে জয়ী হতে যাচ্ছেন। জয়েন্ট লিস্ট অ্যালায়েন্স অব আরব পেতে পারে ১১টি আসন। সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যাভিগডো লিবারম্যানের দল কট্টর ইহুদিবাদী ‘ইসরায়েল বেইতেনু’পেতে পারে ৮টি আসন।

এর অর্থ হচ্ছে, ১২০ আসনের ইসরায়েলি পার্লামেন্ট নেসেটে কোনো দলই সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাচ্ছেন না। সেক্ষত্রে আবারও কোয়ালিশন সরকারই হবে দেশটিতে।

বুধবার সকালে উচ্ছ্বসিত সমর্থকদের উদ্দেশে ভাষণ দিয়েছেন বেনি গান্টজ। এ সময় তিনি সমর্থকদের বলেন, আনুষ্ঠানিক ফলের জন্য অপেক্ষা করতে হবে। তবে জয়ের ব্যাপারে তার যথেষ্ট আত্মবিশ্বাস রয়েছে।

অন্যদিকে সরকার গঠনের ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু-ও। ইতোমধ্যে জোট সরকার গঠনের বিষয়ে আলোচনা শুরু হছে বলেও তিনি তার সমর্থকদের জানিয়েছেন।

এর আগে, চলতি বছরের এপ্রিলে দেশটিতে আগাম সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে সরকার গঠন করতে ব্যর্থ হয় ক্ষমতাসীন দল লিকুদ পার্টি। বুধবার সকালের দিকে বুথ ফেরত জরিপের ফল প্রকাশ শুরু হয়েছে। এই ফল গণমাধ্যমে আসার পর শিগগিরই জোট সরকার গঠনের তৎপরতা শুরু হতে পারে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে।

বুধবার সকালের দিকে সমর্থকদের উদ্দেশে নেতানিয়াহু বলেছেন, আমরা একটি কঠিন নির্বাচনী প্রচার অতিক্রম করে আসছি। আমরা এখন প্রকৃত ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করছি। তবে একটি বিষয় পরিষ্কার। সেটি হচ্ছে ইসরায়েল রাষ্ট্র এই মুহূর্তে একটি ঐতিহাসিক পয়েন্টে অবস্থান করছে। আমরা বিশাল সুযোগ ও চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছি।