কান্নাজড়িত কণ্ঠে অর্থমন্ত্রীর মেয়ের আকুতি

খেলাধুলা

rana miya | ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ০৮:২৮ অপরাহ্ন

এ বছর বিপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক হচ্ছে না। বিসিবির এই সিদ্ধান্তে ভীষণ ধাক্কা খেয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামালের মেয়ে নাফিসা কামাল। বৃহস্পতিবার রাতে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে কেঁদেই ফেলেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের স্বত্বাধিকারী।

দুদিন আগে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানের নেয়া সিদ্ধান্তের পরিপেক্ষিতে আসরের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের স্বত্ত্বাধিকারী নাফিসা কামাল বলছেন, টুর্নামেন্ট বঙ্গবন্ধুর নামে হওয়ায় এবারের আসরের অংশ হতে আরো বেশি আগ্রহী তার ফ্র্যাঞ্চাইজি।

আবেগতাড়িত কণ্ঠে নাফিসা বলেন, অনেক দিন ধরে দলটা নিয়ে আছি। আজ বিপিএল যে পর্যায়ে এসেছে, তাতে আমার ফ্র্যাঞ্চাইজির অবদান আছে। প্রতিটি ফ্র্যাঞ্চাইজির অবদান আছে। বলতে গেলে একটু ইমোশনাল হয়ে যেতে হয়। শুরু থেকেই আছি এখানে।… পুরো বিশ্ব থেকে যে ভালোবাসা পেয়েছি, এটা অনেক বড় ব্যাপার।…ভীষণ ইমোশনাল হয়ে যাচ্ছি, এবার কুমিল্লা খেলবে, অথচ আমরা এটার সঙ্গে জড়িয়ে থাকতে পারব না, এটা আমার জন্য অনেক কষ্টকর।

নাফিসা কামালের আকুতি- বঙ্গবন্ধুর নামে বিপিএল আয়োজনে যেন তাদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বিপিএল আয়োজিত হচ্ছে। আমাদের টিম নিয়ে পতাকাটা ওড়াতে চাই আমরা। কোনোভাবেই এর বাইরে থাকতে চাই না। অনেক বছর ধরে বিপিএলে খেলছি। মালিকদের মধ্যে আমি সবচেয়ে পুরনো। অনেক প্রতিকূলতা পেরিয়ে, বিপৎসংকুল পথ ডিঙিয়ে, অজস্র বাধা অতিক্রম করে এ প্রতিযোগিতায় খেলতে হয়েছে আমাদের।

তিনি বলেন, বিসিবির তত্ত্বাবধানে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে সুন্দর আয়োজন হতে যাচ্ছে। আমরা এর বাইরে থাকতে পারি না। আমি চাই না আমার দলবল এত বড় একটা সুযোগ থেকে বঞ্চিত হোক। আমি চাই- বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড এ টুর্নামেন্ট আরও সুন্দরভাবে আয়োজন করুক। আমরা পরিপূর্ণ সহোযোগিতা করব।

প্রসঙ্গত, এখন বিপিএলে থাকতে ভীষণ আগ্রহ প্রকাশ করলেও কদিন আগে বিসিবির সঙ্গে বৈঠক শেষে নাফিসাই অবশ্য বলেছিলেন, এটা আমাদের সবার জন্য অলাভজনক প্রয়াস। চিন্তা করছি আগামী বছর বিপিএলে থাকব কি না।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  • *
  • এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আরও খবর

    kidarkar
    kidarkar