টানা এক বছর তরুণীকে ধ’র্ষণ করে ‘আধ্যাত্মিক জগতে’ বিজেপি মন্ত্রী!

ভারতের উত্তর প্রদেশের এক তরুণী অ’ভিযোগ করেছেন তাঁকে টানা এক বছর ধরে ধ’র্ষণ করেছেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বিজেপি নেতা চিন্ময়ানন্দ।

সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে জানায়, ওই তরুণী এক সপ্তাহ নি’খোঁজ থাকার পর বিজেপি নেতা ও প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী চিন্ময়ানন্দের বি’রুদ্ধে ধ’র্ষণের অ’ভিযোগ করে বলেন, তিনি এই কদিন আত্মগো’পন করেছিলেন কারণ তাঁর ভয় ছিল তাঁর এবং তাঁর পরিবারের প্রাণের ঝুঁ’কি রয়েছে।

২৩ বছর বয়সী ওই তরুণী তিন বারের সাংসদ চিন্ময়ানন্দ পরিচালিত একটি আইন কলেজের ছাত্রী ছিলেন। তাঁর অ’ভিযোগ, ৭২ বছর বয়সী চিন্ময়ানন্দ তাঁকে এক বছর ধরে ধ’র্ষণ ও শারীরিক নি’র্যাতন করেছেন।

বৃহস্পতিবার দিল্লির লোধি রোডের থানায় জমা দেওয়া ১২ পাতার অ’ভিযোগপত্রে ওই তরুণী জানান উত্তর প্রদেশের পু’লিশকে তিনি বিশ্বা’স করেন না। কেননা তাঁর পরিবার উত্তর প্রদেশের শাহ’জাহানপুর জে’লা প্রশাসন থেকে কোনো সাহায্য পায়নি।

গত সোমবার সংবাদমাধ্যমের সামনে উপস্থিত হয়ে কালো স্কার্ফে মুখ ঢেকে ওই তরুণী জানান, চিন্ময়ানন্দ তাঁকে এক বছর ধরে ধ’র্ষণ ও শারীরিক নি’পীড়ন করেছেন।

গত ২৪ আগস্ট থেকে নি’খোঁজ থাকার পর ৩০ আগস্ট রাজস্থানে তাঁকে খুঁজে পাওয়া যায়। এর আগে এক সপ্তাহ তাঁর কোনো খোঁজ মেলেনি। নি’খোঁজ হওয়ার আগে তিনি অনলাইনে একটি ভিডিও পোস্ট করে জানান, ওই বিজেপি নেতা কী’ভাবে তাঁকে নিগ্রহ করেছেন ও ভয় দেখিয়েছেন। তাঁকে খু’নের হুমকিও দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। ওই ভিডিওতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের কাছে সাহায্য প্রার্থনা করেন ওই তরুণী।

এদিকে বিজেপি নেতা ও প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী চিন্ময়ানন্দ জানান, এসবই তাঁকে ব্ল্যাকমেল করার চক্রান্ত।

গত ৩০ আগস্ট ওই তরুণীকে রাজস্থানে খুঁজে পাওয়া পর সুপ্রিম কোর্টে হাজির করা হলে তিনি আ’দালতকে জানান, প্রাণ বাঁ’চাতেই তিনি আত্মগো’পন করেছিলেন। এরপর শীর্ষ আ’দালত একটি বিশেষ অনুসন্ধানকারী দল গঠন করার নির্দেশ দেন এই অ’ভিযোগের ভিত্তিতে ত’দন্ত শুরু করার জ‌ন্য।

অন্যদিকে চিন্ময়ানন্দের আইনজীবী জানিয়েছেন, ‘স্বামী জি মা’মলা’টি থেকে দূরে সরে যাচ্ছেন না। তিনি এই মুহূর্তে আধ্যাত্মিক ক্রিয়াকলাপে ব্যস্ত। কিন্তু তিনি অবশ্যই প্রয়োজন পড়লে দিল্লি পু’লিশের সামনে হাজিরা দেবেন।া