পাইলটের সাহসিকতায় অবিশ্বা’স্য ভাবে বেঁচে গেল ২৩৩ জন যাত্রী

অবিশ্বা’স্য ঘটনা ঘটাল রাশিয়ার ইউরাল এয়ার লাইনন্সে একটি উড়ান। ২৩৩ জন যাত্রী নিয়ে আকাশে ওড়ার একঝাঁক পাখি বিমানের ইঞ্জিনের সামনে চলে আসে৷

পরিস্থিতি সামাল দিতে দ্রুত প্লেনটিকে সরিয়ে একটি ভুট্টা খেতের মধ্যে নামিয়ে বড়সড় দুর্ঘ’টনা এড়ায় রাশিয়ার ইউরাল উরান সংস্থার এয়ারবাস-৩২১ । বৃহস্পতিবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটে ৷

রাশিয়ার রাজধানী মস্কো শহরের দক্ষিন দিকে অবস্থিত ওই ভুট্টা খেতে বিমানটি দ্রুত অবতরণ করে। রাশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রীর তরফে জানানো হয়েছে, এভাবে দ্রুত অবতরণ করতে গিয়ে দুর্ঘ’টনার কবলে পড়ে ২৩ জন যাত্রীর বেশ কিছুটা আ’হত হন ৷ তবে প্লেনের বাকি যাত্রীরা অক্ষতই রয়েছেন । রাশিয়ার সরকারি টেলিভিশন সূত্রে জানা গিয়েছে, প্লেনটি যখন মস্কোর জুকোভাস্কে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে যাত্রী নিয়ে আকাশে ওড়ে তার কিছুক্ষনের এই ঘটনাটি ঘটে ।

ইন্টারফাক্স নিউজএজেন্সি জানিয়েছে, ২৩৩ জন যাত্রীর মধ্যে একজন যাত্রীর অবস্থা খুব আশ’ঙ্কাজনক। রাশিয়ার একটি ট্যাবলয়েড প্লেনটির পাইলট দামির উসস্পুভকে একেবারে এই মিরাকেলের নায়ক বলে অ্যাখ্যা দিয়েছেন ৷ তিনি যদি আজ দক্ষতার সঙ্গে প্লেনটিকে সঠিক সময়ে সরিয়ে না আনতেন তাহলে হয়ত ২৩৩ জনের কেউই আর বেঁচে থাকত না ।

এই ঘটনাটিকে কেউ কেউ আবার ২০০৯ সালের ইউএস এয়ার লাইনন্সের -১৫৪৯ এর একটি এয়ার বাসের ঘটনার সাথে তুলনা করেছে, যেখানে দেখা গিয়েছিল প্লেনটি যখন আকাশে ওড়ে তখন হঠাৎ করে কিছু বন্য পাখি ওই প্লেনটির সামনে চলে আসে, প্লেনটি তখন হাডসন নদীর মধ্যে পড়ে যায়।

নাম প্রকাশে অনিছুক ওই প্লেনেরই এক ব্যক্তি সরকারি টিভিকে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় বলেন,’ প্লেনটি যখন আকাশে ওড়ে তার কিছুক্ষণের মধ্যেই বিশাল ঝাঁকুনি শুরু হয় এবং ভিতরের সমস্ত আলো গু’লি বারবার জ্বলতে নিভতে থাকে। কিছুক্ষণ পরে যখন জ্ঞান ফিরল তখন বুঝতে পারলাম যে প্লেনটি একটি খেতের মধ্যে ল্যান্ড করেছে এবং আশেপাশের সব লোকজন ভয়তে ছোটাছুটি করছে ‘।