কাশ্মীরের জনগণের সংগ্রামকে সমর্থন করা আমাদের দায়িত্ব: ড. তুহিন মালিক

কাশ্মীরের নি’পীড়িত জনগণের ন্যায়সঙ্গত সংগ্রামকে সম’র্থন করা আমাদের সাংবিধানিক দায়িত্ব।

কেননা বাংলাদেশ সংবিধানের ২৫(১) (গ) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, “সাম্রাজ্যবাদ, ঔপনিবেশিকতাবাদ বা বর্ণবৈষম্যবাদের বি’রুদ্ধে বিশ্বের সর্বত্র নি’পীড়িত জনগণের ন্যায়সঙ্গত সংগ্রামকে সম’র্থন করিবেন৷”

আর যারা বাংলাদেশের জনগণের এই সাংবিধানিক দায়িত্বকে অস্বীকার করবে, কিংবা নাগরিকের এই সাংবিধানিক দায়িত্ব পালনে বাধা দিবে, কিংবা ভয়-ভীতি বা হুমকি দিবে, তারা প্রত্যেকেই সংবিধানের বিধান মতে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অ’প’রাধে দোষী সাব্যস্ত হইবে। যাহার শা’স্তি মৃ’ত্যুদ’ণ্ড।

কেননা বাংলাদেশ সংবিধানের ৭ক।(১)(খ) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, “এই সংবিধান বা ইহার কোন বিধানের প্রতি নাগরিকের আস্থা, বিশ্বা’স বা প্রত্যয় পরাহত করিলে কিংবা উহা করিবার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ বা ষড়যন্ত্র করিলে- তাহার এই কার্য রাষ্ট্রদ্রোহিতা হইবে এবং ঐ ব্যক্তি রাষ্ট্রদ্রোহিতার অ’প’রাধে দোষী হইবে।”

ফেসবুক থেকে সংগ্রহীত।