প্রেমের এ কেমন পরিণতি?

বিশেষ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় বুধবার, ৮ আগস্ট, ২০১৮
  • ৪৫ বার পড়া হয়েছে
ctg-news

হাসনাহেনা ও সাকিবের বছর খানেকের প্রেম। আর সেই প্রেম স্থায়ী রূপ পায় দেড় বছর আগে বিয়ের পিঁড়িতে বসার মধ্যদিয়ে। এর মধ্যে তাদের ঘর আলো করে এসেছে একটি ছেলে সন্তান। সেই সোনার সংসার কবে কখন ঘুনে ধরেছে তা তারা বুঝতেই পারেননি। আর এ সোনার সংসারের বাঁধন কাটলো একটি অপমৃত্যুতে!

মঙ্গলবার (৭ আগস্ট) বিকেলে চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার আধুনগর রশিদার ঘোনা এলাকা থেকে গৃহবধূ হাসনাহেনা বিউটির (২০) মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পুলিশ ও স্থানীয়রা বলছেন, এ মৃত্যু রহস্যজনক। তাই আটক করা হয়েছে তার স্বামীকে।

নিহত হাসনাহেনা উপজেলার দয়ারপাড়া যুবলীগ নেতা জাফর আহমদের কন্যা। হাসনাহেনা লোহাগাড়া উপজেলা সদরের ফোরকান টাওয়ারে ভাড়া বাসায় স্বামীর পরিবারের সঙ্গে থাকতেন। স্বামীর পরিবারে রয়েছেন তার মা ও ভাই-বোন।

এ দিকে ঘটনার পরপরই নিহতের শ্বাশুড়ি ফাতেমা বেগম পালিয়ে যান বলে জানা গেছে। স্থানীয় সূত্র জানায়, মঙ্গলবার বিকেলে হঠাৎ জানা যায় গৃহবধূ হাসনাহেনা মারা গেছে, তাকে রশিদার ঘোনা এলাকার একটি কবরস্থানে গোপনে দাফন করা হচ্ছে। এ খবর স্থানীয়রা পুলিশকে জানালে, নিহতের মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় থানায়। এরপরই নিহতের স্বামী সাকিবকে আটক করে লোহাগাড়া থানা পুলিশ।

নিহতের স্বামী বরাত দিয়ে লোহাগাড়া থানার এসআই হাসেম জানান, সকালে স্ত্রী হাসনাহেনারা সঙ্গে ঝগড়া হয় সাকিবের। এরপর সাকিব ঘর থেকে বেরিয়ে যান। কিছুক্ষণ পরে হাসনাহেনা সাকিবকে ফোন করে জানান, তিনি হারপিক খেয়েছেন। সঙ্গে সঙ্গে ঘরে ফিরে হাসনাহেনাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

তবে চট্টগ্রাম মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দিন তালুকদার নিশ্চিত করে বলেন, এ রকমের কোনো রোগী আজ এ হাসপাতালে আসেনি।

নিহতের বাবা বলেন, আমার মেয়ে স্বামীর পরিবারের সঙ্গে ফোরকান টাওয়ারে ভাড়া বাসায় থাকতো। আমরা ভাড়াটিয়াদের মাধ্যমে জানতে পারি, সকালে স্বামী ও স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। ঝগড়ার একপর্যায়ে বাসার লোকজন হাসনাহেনাকে নিয়ে হাসপাতালে যায়। হাসপাতালে মৃত্যু হলে আমাদের না জানিয়ে দাফন করার চেষ্টা করে। পরে গোপনে দাফনের বিষয় জানতে পেরে এলাকার লোকজন উপজেলার রশিদার ঘোনা এলাকায় গেলে মরদেহ নিয়ে থানায় নিয়ে আসে।

তিনি আরও জানান, ওরা আমার মেয়েকে হত্যা করেছে। যদি হত্যা না করতো, তাহলে গোপনে দাফন করতে ছিল কেন?

এসআই হাসেম বলেন, এ ঘটনায় নিহতের স্বামী সাকিবকে আটক করা হয়েছে। হত্যার রহস্য উদঘাটন করার জন্য মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

সৌজন্যে- জাগো নিউজ

বন্ধুকে সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও যা পড়ে দেখতে পারেন
Copyright © 2021 All rights reserved www.mediamorol.com
Developed By Kidarkar IT Solution